RSS

ক্লার্কের ব্যাটে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের প্রথম দিন অস্ট্রেলিয়ার

02 Aug

llo  জেডি ডেস্ক॥

টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় যে রকম একটা সূচনার প্রত্যাশা ছিল মাইকেল ক্লার্কের মনে, ঠিক সেটাই করেন  ক্রিস রজার্স আর শেন ওয়াটসন জুটি। কিন্তু সেটি ছাপিয়ে ওল্ড ট্র্যাফোর্ড টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম ভাগের আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছিল ডিআরএস।  আরো একবার আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার ক্ষেত্রে নির্মমতার শিকার হয়েছে অস্ট্রেলিয়ানরা। অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম দুই টেস্টে ইংলিশ অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক মুদ্রাভাগ্যে বিজয়ী হলেও ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভাগ্যের খেলায় জিতে যান অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক।
কিন্তু এর পরের অংশটা শুধুই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্কের। দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করে অপরাজিত থাকা অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক দ্বিতীয় দিনেও ব্যাটিংয়ে নামবেন। মূলত তার সেঞ্চুরিতেই  ম্যাচের নিয়ন্ত্রণও এখন সফরকারীদের হাতেই। প্রথম দিন শেষে তিন উইকেটে ৩০৩ রান তুলে বড় ইনিংস খেলার ইঙ্গিত দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। রজার্সের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে ৭৬ রান তুলে দিনের প্রথম ঘণ্টাটি নিরাপদেই কাটিয়ে দেন ওয়াটসন। অবশ্য নিজের চরিত্রের সঙ্গে একটু বেমানান রকমের রক্ষণাত্মক ব্যাটিং করছিলেন তিনি।
তবে অন্য প্রান্তে রজার্সের আক্রমণাত্মক মেজাজ সেটা ঢেকে দিচ্ছিল। পানি পানের প্রথম বিরতির পর ফিরে প্রথম দুই ওভারে ব্রেসনানকে দুইবার আর অ্যান্ডারসনকে তিন বার বাউন্ডারির তেতো স্বাদ উপহার দিয়েছেন এ বাঁহাতি। ব্রেসনান অবশ্য আঘাত হেনেছেন পরের ওভারেই।  ওয়াটসনের (১৯) লড়াই শেষ হয় তার আউট সুইঙ্গারে প্রথম ক্যাচ দিয়ে। তবে এরপর গ্রায়েম সোয়ানের বলে উসমান খাজাকে (২) যেভাবে আউট ঘোষণা করা হয়েছে, সেটা দুর্ভাগ্য ছাড়া আর কিছু নয়।
মাঠের আম্পায়ার টনি হিলের নেয়া সিদ্ধান্তটা চ্যালেঞ্জ করেছিল অস্ট্রেলিয়ানরা, টিভি রিপ্লেতেও পরিষ্কার বোঝা যায়নি যে, ম্যাট প্রায়রের গ্লাভসে জমা পড়ার আগে আসলেই ব্যাটের কোণায় বল চুমু খেয়েছিল কিনা। কিন্তু ব্যাটসম্যানের প্রাপ্য বেনিফিট অব ডাউটটা দেননি টিভি আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা। বিনা উইকেটে ৭৬ থেকে তাই চোখের পলকে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর হয়ে যায় ২ উইকেটে ৮২। তৃতীয় উইকেটে ৪৭ রানের জুটি গড়ে সেই ধাক্কা অনেকটাই সামাল দিয়েছেন ক্লার্ক আর রজার্স। তবে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিটা যখন হাতছানি দিচ্ছিল রজার্সকে, তখনই ভুল করে বসেন তিনি।
সোয়ানকে ক্রস ব্যাটে খেলতে গিয়ে পড়েন এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে। ১১৪ বলে ১৪টি বাউন্ডারিতে ৮৪ রানের ইনিংস খেলে ডেভিড ওয়ার্নারের জায়গায় তাকে দিয়ে ইনিংস ওপেনিংয়ে আস্তা রাখার যোগ্য সম্মান দিয়ে গেছেন রজার্স।
ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এরপর ক্লার্কের রাজত্ব। অ্যাশেজের প্রথম দুই টেস্টে ঠিক সেভাবে হাসেনি তার ব্যাট। সেটি পুষিয়ে দিলেন কাল। ক্যারিয়ারের ২৪তম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন স্টাইলিশ ব্যাটিংয়ে। প্রথম দিন শেষে ২০৮ বল খেলে ১২৫ রানে অপরাজিত ক্লার্ক। দারুণ সমর্থন পেয়েছেন সঙ্গী স্টিভেন স্মিথের কাছ থেকে। ৭০ রানে অপরাজিত আছেন স্মিথ। চতুর্থ উইকেট জুটিতে ক্লার্ক-স্মিথ এরই মধ্যে জুড়ে দিয়েছেন ১৭৪ রান। প্রথম দুই টেস্টে হারা অস্ট্রেলিয়া তাই স্বপ্ন দেখতে পারছে সিরিজে ফেরার।
এই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার একাদশে পরিবর্তন হয়েছে তিনটি। ফিল হিউজ, জেমস প্যাটিনসন আর অ্যাস্টন অ্যাগারের জায়গায় একাদশে ঢুকেছেন ডেভিড ওয়ার্নার, মিচেল স্টার্ক ও নাথান লিওন। ইংল্যান্ড অবশ্য শেষ পর্যন্ত কোনো পরিবর্তন করেনি, লর্ডস টেস্টে খেলা এগারো জনকে নিয়েই ওল্ড ট্র্যাফোর্ডেও খেলতে নেমেছে তারা।

 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন 2013/08/02 in ক্রীড়াঙ্গন

 

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

 
%d bloggers like this: